মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৭ নভেম্বর ২০১৫

পরিকল্পনা সেল

রপ্তানি বাজার সম্প্রসারণ, নতুন বাজার অন্বেষণ ও আন্তর্জাতিক বাজারের চাহিদা মাফিক পণ্যের গুণগত মানোন্নয়ন  তথা বাংলাদেশের সার্বিক বাণিজ্য উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণের মাধ্যমে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা শাখা নিরন্তর  কাজ করে চলেছে।

 

‘‘বাংলাদেশ ট্রেড পলিসি সাপোর্ট প্রোগ্রাম’’ শীর্ষক কারিগরি সহায়তা প্রকল্পের আওতায় রপ্তানী উন্নয়ন ব্যুরোতে জিএসপি আটোমেশন স্থাপন করা হয়েছে। এতে করে রপ্তানিকারকগণ অনলাইনে অতি অল্প সময়ে জিএসপি সার্টিফিকেশন সেবা পাচ্ছেন। একই প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশের সার্বিক বাণিজ্য উন্নয়নের লক্ষ্যে ‘‘কমপ্রিহেনসিভ ট্রেড পলিসি’’ এর খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে।

 

“বাংলাদেশ ইকনমিক গ্রোথ প্রোগ্রাম” শীর্ষক কারিগরি সহায়তা প্রকল্পের অধীনে মৎস্য সেক্টরে ৭০ টি এবং লেদার সেক্টরে ৫৮ টি প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে।  যার মধ্যে মোট ৭২২০ জন কে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে ।

 

“সাপোর্ট টু বাংলাদেশ আরএমজি সেক্টর আন্ডার বিডব্লিউটিজি কম্পোনেন্ট অব বেস্ট প্রোগ্রাম” প্রকল্পের মাধ্যমে বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি (BUFT) এবং বিকেএমইএ ইনস্টিটিউট অব অ্যাপারেল রিসার্চ এন্ড টেকনোলজিকে (IART) কারিগরি সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। ২০১৪-১৫ অর্থ বছরে BUFT-তে বিভিন্ন কোর্সে বিভিন্ন মেয়াদে ১৬০০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে ৬০০ জন শিক্ষার্থী ইতোমধ্যে কোর্স সম্পন্ন করেছেন। এছাড়া, IART হতে ৪৭৩৯ জন প্রশিক্ষণার্থীকে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। 

 

“প্রমোশন অব সোস্যাল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল স্ট্যান্ডার্ডস ইন দ্যা ইন্ডাস্ট্রি” শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ২৩৫ টি আরএমজি ফ্যাক্টরীর সোস্যাল কমপ্লায়েন্সের মান উন্নয়ন করা হয়েছে এবং Centre for the Rehabilitation of the Paralysed (CRP)-তে কৃত্রিম হাত পা সংযোজনের ওয়ার্কশপ স্থাপন করা হয়েছে। 

 

“Support to PSES Efforts to Ensure Development in the RMG Industry (SPEED)” শীর্ষক কারিগরি সহায়তা প্রকল্পের আওতায় পোশাক শিল্পে সংগঠিত অগ্নিকান্ডের ক্ষয়-ক্ষতি হ্রাসে মিনি ফায়ার বিগ্রেড স্থাপন [Combined Risk Reduction and Rapid Response Unit (C4RU)] করা হয়েছে।

“এগ্রি-বিজনেস ফর ট্রেড কম্পিটিটিভনেস্ প্রজেক্ট (এটিসিপি)” শীর্ষক প্রকল্পের মাধ্যমে ২০১৪-১৫ অর্থ বছরে ২৮টি স্টাডি, ১২০টি ওয়ার্কশপ, ৫০০টি ক্যাপাসিটি বিল্ডিং ও ৫৬০টি প্রমোশনাল কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে। যা অভ্যন্তরীণ ও রপ্তানি বাণিজ্যের সুষ্ঠু বাজারজাতকরণ পদ্ধতির বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা দূরীকরণে সহায়ক হবে।

“Raising Transparency in Textile and Garments Value Chains” শীর্ষক কারিগরি সহায়তা প্রকল্পটি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় জিআইজেড কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো- আরএমজি এবং টেক্সটাইল সেক্টরে ভেল্যু চেইন উন্নয়নের মাধ্যমে টেকসই পোশাক শিল্পের উন্নয়নসাধন। প্রকল্পের আওতায় আরএমজি সেক্টরের Value Chains এর উপর একটি সমীক্ষা পরিচালিত হবে।

 

 দেশের তিন পার্বত্য জেলা বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও রঙ্গামাটিতে ব্যাক্তি মালিকানাধীন অব্যবহৃত / পতিত  পাহাড়ি জমিতে চা চাষ সম্প্রসারণের মাধ্যমে চায়ের উৎপাদন বৃদ্ধি করা, দেশের চাহিদা পূরণ ও আন্তর্জাতিক বাজারে রপ্তানি করা, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, ক্ষুদ্র চা চাষীদের আয়বর্ধনের মাধ্যমে এলাকার আর্থ সামাজিক উন্নয়নে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ চা বোর্ড নিজস্ব অর্থায়নে ‘‘স্মল হোল্ডিং টি কাল্টিভেশন ইন চিটাগাং হিল ট্র্যাক্টস’’ শীর্ষক প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে। এছাড়া, বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের পঞ্চগড়, লালমনিরহাট, ঠাঁকুরগাঁও জেলার ব্যক্তিখাতের অব্যবহৃত/পতিত, খাস জমিতে সমবায় সমিতি গঠনের মাধ্যমে চা চাষ সম্প্রসারণ করে চা-এর উৎপাদন বৃদ্ধি করা,  ক্ষুদ্র চাষীদের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করা,  দেশের চাহিদা পূরণ ও আন্তর্জাতিক বাজারে রপ্তানী করা, উত্তরাঞ্চলের দারিদ্রপিড়ীত বেকার জনগোষ্ঠির চাকুরীর সুযোগ সৃষ্টি করার মাধ্যমে দারিদ্র দূরীকরণ এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখার লক্ষ্যে বাংলাদেশ চা বোর্ডের নিজস্ব অর্থায়নে ‘‘ডেভেলপমেন্ট অব স্মল হোল্ডিং টি কালটিভেশন ইন নর্দার্ণ বাংলাদেশ” শীর্ষক প্রকল্পটি সফলভাবে সমাপ্ত হয়েছে।

 

উল্লেখ্য যে, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে ২০১৪-১৫ অর্থ বছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় বাস্তবায়নাধীন ০৭ টি কারিগরি সহায়তা প্রকল্পের মধ্যে ০৩ টি প্রকল্প ইতোমধ্যে সমাপ্ত হয়েছে।


Share with :
Facebook Facebook